Thursday, November 9, 2017

ফোনে ব্যক্তিগত গোপন তথ্য রাখছেন? সাবধান !





অাপনি কি জানেন, অাপনার হাতের ফোনটিই একসময় অাপনার বড় ধরণের বিপদের কারণ হতে পারে? অাপনি শিকার হতে পারেন ব্ল্যাকমেইল কিংবা বড় রকম ক্ষতির । হারিয়ে ফেলতে পারেন অাপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে রাখা টাকা ।
এটা নিশ্চিত প্রত্যেকের ফোনো প্রয়োজনীয় ফোন নাম্বার, ইমেইল, পাসওয়ার্ড, ব্যাকং অ্যাকাউন্ট, ব্যক্তিগত বা গোপন ছবি, ভিডিও, অডিও, তথ্যসহ বিভিন্ন ফাইল থাকে ।
ফোনে ব্যক্তিগত গোপন তথ্য রাখছেন? সাবধান !

১. হারিয়ে যাওয়া বা চুরি হওয়া: ফোন হারিয়ে যাওয়া, চুরি বা ছিনতাই হওয়া খুবই সাধারণ বিষয় । সেই হারানো বা চুরি হওয়া ফোন এমন কারো হাতে পৌঁছাতে পারে, যে অাপনার ফোনে রাখা গোপন তথ্য নিয়ে অাপনাকে ব্ল্যাকমেইল করতে পারে এমনকি অাপনার বড় রকমের ক্ষতিও করতে পারে । ইন্টারনেটে স্বামী-স্ত্রী কিংবা প্রেমিক-প্রেমিকার অন্তরঙ্গ মূহুর্তের বিভিন্ন ছবি, ভিডিওি, অডিওর ছয়লাব । অাপনি যদি অাপনার ফোনে এমন কিছু রাখেন, তাহলে ইন্টারনেট হ্যারেজম্যান্টের শিকার অাপনিও হতে পারেন অাপনার অজান্তেই । সারা পৃথিবীতে এরকম শিকারের মানুষের সংখ্যা এতোবেশি কল্পনাও করতে পারবেন না । তাই গোপন কিছু যদি সংরক্ষণ করে রাখতেই হয় তবে তা কম্পিউটারের হার্ডড্রাইভে এনক্রিপ্টেড করে রাখুন ।
২. মেমোরি বা স্মার্টফোন বিক্রি: অামরা অনেকসময় অামাদের ফোন বা মেমোরি কার্ড অন্যের কাছে বিক্রি করে দেই । বিশেষ করে স্মার্ট ফোন ও মেমোরি কার্ড বিক্রি করা মোটেই নিরাপদ নয়, যদি এসবে অাপনার ব্যক্তিগত গোপন তথ্য থাকে । অাপনি ডিলিট করে দিলেও সেটা বিভিন্ন সফটওয়্যারের মাধ্যমে রিকভার বা পুনরুদ্ধার করা সম্ভব । অাপনার মেমোরি যদি নষ্ট ও হয়ে যায়, তবু সেটা অন্যের হাতে যেতে দিবেন না । প্রয়োজনে ভেঙ্গে ফেলুন ।
৩. অনিরাপদ অ্যাপ ইনস্টল: অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ছোঁয়ায় অামাদের প্রায় সবার হাতে হাতে এখন স্মার্টফোন, যার বেশিরভাগই অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম । দৈনিন্দন প্রয়োজনে অামরা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপগুলো ইনস্টল করে বিভিন্ন সুবিধা নিচ্ছি । অথচ ইনস্টল করার সময় অামরা একেবারেই সচেতন নই যে, অ্যাপগুলো কী কী পারমিশন নিচ্ছে এবং সেটা অামাদের জানিয়েই । অামাদের অ্যাপ ইনস্টল করতে হবে, তাই করছি । অথচ নিরাপত্তার কথা একবারও ভাবছি না । অনেক অনিরাপদ অ্যাপই অামাদের ফোনের কন্টাক্ট নাম্বারসমূহ, এসএমএস, ফাইল, ফটো, ওয়াইফাই ইত্যাদির অ্যাক্সেস গ্রহণ করে থাকে । এসব পারমিশনের মাধ্যমে অামরা অনেকটাই অনিরাপদ, যদি না বিশ্বস্ত ও ব্রান্ড অ্যাপ ডেভলেপারদের অ্যাপ ইনস্টল করি । সবসময় চেষ্টা করবেন অনিরাপদ নন-ব্রান্ডিং অ্যাপ গুলো থেতে দূরে থাকা ।
৪. মেমোরি বা স্মার্টফোন অন্যের হাতে দেয়া: এমন কাউকে অাপনার মেমোরি বা স্মার্টফোন দিবেন না, যে অাপনার সুযোগের ব্যবহার করে অাপনার ক্ষতি করতে পারে ।

0 comments:

Post a Comment

Contact Us

Name

Email *

Message *